আমাদের কথা খুঁজে নিন

   

পথ হারা পাখি কেঁদে ফিরি একা!!! কতো রকম হালাল হারাম ব্যবসার দেশ আমাদের প্রিয় বাংলাদেশ। আজ যাকে মনে হয় বাহ্ কতো দয়াবান ভালো মানুষ। যেমন ইনকাম করে তেমন দান করে। এরকম লোকই হয় না! সময়ের প্রবাহমান ধারায় দেখা যায় ঐ লোকটিই অবৈধ ভাবে কতো টাকার মানুষ হয়েছে। বর্তমান প্রেক্ষাপটে টাকা এমন এক জিনিষ যার মাধ্যমে সম্মান, শিক্ষা, ক্ষমতা সহ অনেক কিছু অর্জন করা সম্ভব। ব্যাবসায়িক আইডিয়াটি শুনুন। আমরা মসজিদের গেটে, মন্দিরের গেটে, লঞ্চ, বাস, ট্রেন, টার্মিনাল, হোটেল, রেস্ট্রুরেন্টের সহ বিভিন্ন পাবলিক প্লেসে দেখতে পাই একটি টিনের গোল বাক্স (বেশীর ভাগই লাল রঙ করা) শিকল দিয়ে বাঁধা একটি তালা মারা থাকে। উপরে কোনো পীর আউলিয়ার নাম। আমরা কি জানি এর চাবীটি কার কাছে থাকে? ব্যাবসায় যা যা লাগবেঃ ১০০টি বক্স ১০০শিকল ২০০টি তালা (শিকলের জন্য একটি আর বক্সের দরজার জন্য একটি) ১০০টি বাক্সে রং করা ১০০টি বাক্সে সাদা বা কালো কালিতে লেখা। (কোনো পীর আউলিয়ার নাম দিতে যদি ভয় লাগে নিজের নামটিকেই পীর আউলিয়া হিসেবে চালিয়ে দিতে পারেন) কিভাবে মার্কেটিং ও প্রসার বাড়াবেনঃ এই ব্যবসায় তেমন কোনো মার্কেটিং এর দরকার নেই। ভালো চলে এমন কোনো চায়ের দোকান বা রেস্তোরায় মোটা অংকের কিছু খাওয়া দাওয়া করে বাক্সের উপর যার নাম লেখা থাকবে তার কেরামতি কিছুক্ষণ বর্ণনা করুন। এভাবে অন্যান্য পাবলিক প্লেসে টিনের বক্স গুলো টাঙিয়ে রাখুন। যেদিন টাঙাবেন ঐ দিন থেকেই মানুষ টাকা পয়সা বক্সে ফেলা শুরু করবে। প্রতি সপ্তাহে তালা খুলে টাকা সংগ্রহ করুন। ইনকামের ২৫% টাকা নিজে খরচ করুন। বাকি ৭৫% টাকা দিয়ে নতুন নতুন টিনের বক্স তৈরী করে ছেড়ে দিন। দেখবেন আজকের ৫০টি টিনের বক্স একদিন পঞ্চাশ হাজার টিনের বক্স হয়ে গেছে। “ঝরে বক মরে আর ফকিরের কেরামতি বাড়ে” বাঙালীর প্রিয় প্রবাদটি মনে রাখুন আত্মবিশ্বাস বাড়াতে। মনে রাখবেন এয়াতীমের হক মারা, মসজিদের জুতা চুরি, ডাকাতী, ঘুষ, ছিনতাই ব্যাংকের টাকা লুট, রাজনীতির ধন্দা, সুদ, চাকুরী বানিজ্য, এমএলএম প্রতারণা ইত্যাদি মাধ্যমের চেয়ে এই ব্যবসা করে ইনকাম করা টাকা সৎ। কারণ এই টাকা যারা দিচ্ছে তারা সম্প্রদান কারকে দিচ্ছে। যখন অনেক টাকা হবে তখন কিছু না হয় দান খয়রাত করে দিলেন। আর বুড়ো বয়সে একবার হজ্জ্ব করে এসে সৃষ্টি কর্তার কাছে তওবা করলেন!

সোর্স: http://www.somewhereinblog.net     দেখা হয়েছে ৫৯ বার     বুকমার্ক হয়েছে বার

অনলাইনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কথা গুলোকেই সহজে জানবার সুবিধার জন্য একত্রিত করে আমাদের কথা । এখানে সংগৃহিত কথা গুলোর সত্ব (copyright) সম্পূর্ণভাবে সোর্স সাইটের লেখকের এবং আমাদের কথাতে প্রতিটা কথাতেই সোর্স সাইটের রেফারেন্স লিংক উধৃত আছে ।