আমাদের কথা খুঁজে নিন

   

বাংলাদেশ বিমান কখোনো কি এয়ারফোর্স ওয়ান হতে পারবে? এয়ারফোর্স ওয়ান, মেরিন ওয়ান, ক্যাডিলাক ওয়ান - এদের পার্থক্য কি?

Speak no evil, hear no evil, see no evil.

আমরা অনেকই এয়ারফোর্স ওয়ান এর নাম শুনেছি। মেরিন ওয়ান, ক্যাডিলাক ওয়ান, এয়ারফোর্স টু, মেরিন টু, ক্যাডিলাক টু ইত্যাদির সম্বন্ধে কতটুকু জানি? ১। এয়ারফোর্স ওয়ান। এটা কোনো বিমান নয়। এটা হচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট যে প্লেনে চড়েন তার এয়ার ট্রাফিক কল সাইন। উনি সাধারনত আমেরিকান এয়ারফোর্স কর্তৃক চালিত একটা স্যাম ২৮০০০ ভিসি ২৫ বিমানে চড়েন বলে ওটাকেই অনেকে এয়ারফোর্স ওয়ান হিসেবে জানেন। প্রেসিডেন্ট যদি কোনো সিভিল এয়ারক্রাফটে চড়েন তখন তাকে বলা হয় এক্সিকিউটিভ ওয়ান! সুতরাং বারাক ওবামা যদি বাংলাদেশ বিমান এ চড়েন তখন তা সাথে সাথে হয়ে যাবে এক্সিকিউটিভ ওয়ান! আবার মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট যে প্লেনে চড়েন টা হচ্ছে এয়ারফোর্স টু! উনি যদি প্রেসিডেন্ট এর সাথে একসাথে চড়েন? তা হলে কলসাইন হবে এয়ারফোর্স ওয়ান! ২। মেরিন ওয়ান। এটা ইউ এস মেরিন চালিত যে হেলিকপ্টারে মার্কিন প্রেসিডেন্ট চড়েন তার কলসাইন। এই হেলিকপ্টার হচছে VH-3D Sea King বা VH-60N WhiteHawk ধরনের হেলিকপ্টার! মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট যে হেলিকপ্টারে চড়েন টা হচ্ছে মেরিন টু! ৩। ক্যাডিলাক ওয়ান। এটা হচছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এর অফিসিয়াল গাড়ী বা লিমোজিন। সাধারনত ক্যাডিলাক কোম্পানির গাড়ী ব্যবহার হয় বলে এটাকে ক্যাডিলাক ওয়ান বা দি বিস্ট (The Beast) নামেও ডাকা হয়। এটা ৫ ইন্চি মোটা লোহার প্লেট দিয়ে মোড়া এবং এর মধ্যে ইলেকট্রনিক কাউন্টার মেজার ইত্যাদি আছে। এর চাকা ফুটো হয়ে গেলেও এটা চলতে পারে। এর মধ্যে মার্কিন প্রেসিডেন্ট এর এক বোতল রক্ত ও রাখা হয়। সবচে মজার কথা হচ্ছে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বদল হলে তার ব্যবহৃত গাড়ী ধ্বংস করে ফেলা হয় যাতে তার নিরাপত্তার ফিচার গুলো কেউ না জানতে পারে। কি মজা ওবামার, না?

সোর্স: http://www.somewhereinblog.net     দেখা হয়েছে বার

অনলাইনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কথা গুলোকেই সহজে জানবার সুবিধার জন্য একত্রিত করে আমাদের কথা । এখানে সংগৃহিত কথা গুলোর সত্ব (copyright) সম্পূর্ণভাবে সোর্স সাইটের লেখকের এবং আমাদের কথাতে প্রতিটা কথাতেই সোর্স সাইটের রেফারেন্স লিংক উধৃত আছে ।