আমাদের কথা খুঁজে নিন

   

কাপাসিয়ায় উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের প্রার্থী বাছাইকে কেন্দ্র করে আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে নেতাকর্মীদের তোপের মুখে পড়েন সংসদ সদস্য সিমিন হোসেন রিমি। এ সময় প্রার্থীদের পক্ষে-বিপক্ষে বিক্ষোভ মিছিল ও তুমুল হট্টগোলের ঘটনা ঘটে। খবর পেয়ে থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে এমপি রিমিকে উদ্ধার করে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে উপজেলা শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, আজ বৃহস্পতিবার বিকালে উপজেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান ভাইস-চেয়ারম্যান নির্ধারণ করতে এক বর্ধিত সভা অনুষ্ঠিত হয়। বর্ধিত সভার শুরুর দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহ অন্য কাউকে বক্তব্য দেয়ার সুযোগ না দিয়ে সরাসরি এমপি রিমিকে বক্তব্য দিতে বলেন। এমপি রিমি কেবল বর্তমান উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাহার হোসেন মোল্লার মনোনয়নের বিষয়টি বিবেচনায় রেখে বক্তব্য শেষ করার পরপরই উপস্থিত নেতাকর্মীদের একটি অংশ হাতাহাতি, ধাক্কাধাক্কি এবং বিক্ষোভ-হট্টগোল শুরু করে। তারা সভাপতি শহীদুল্লাহকে অবাঞ্চিত বলে মিছিল করে।

এরপর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আরিফ ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোতাহার মোল্লার সমর্থকরা এমপি রিমি ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মুহম্মদ শহীদুল্লাহকে অবরুদ্ধ করে রাখে এবং খণ্ড খণ্ড মিছিল বের করে। পরে থানা পুলিশ খবর পেয়ে এমপি রিমিকে অবরূদ্ধ অবস্থা থেকে উদ্ধার করে উপজেলা পরিষদের দিকে নিয়ে যায়।

অনলাইনে ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা কথা গুলোকেই সহজে জানবার সুবিধার জন্য একত্রিত করে আমাদের কথা । এখানে সংগৃহিত কথা গুলোর সত্ব (copyright) সম্পূর্ণভাবে সোর্স সাইটের লেখকের এবং আমাদের কথাতে প্রতিটা কথাতেই সোর্স সাইটের রেফারেন্স লিংক উধৃত আছে ।

প্রাসঙ্গিক আরো কথা
Related contents feature is in beta version.